দেশের যেকোন স্থানে ৮০০০ – ১২০০০ বেতনে HSC পাস প্রতিনিধি হিসেবে কাজ – সাথে থাকবে কমিশন/ টিএ/ ডিএ এবং দারুন পরিবেশ কাজের

৫০ জন বিক্রয় প্রতিনিধি নিবে রিফ্রেশ কাফে। এইস এস সি পাসেই যে কেউ চাইলেই সহজেই এপ্লিকেশন জমা দিয়ে জয়েনিং এর প্রকৃয়া শুরু করতে পারবেন। উল্লেখ আছে যে, এদের হয়ে কাজের ক্ষেত্রে ১ টি সুন্দর কাজের পরিবেশ আছে। আরো উল্লেখ আছে যে, প্রশিক্ষন দেয়া হবে। সার্কুলারের ভাষ্য মতে ব্যতিক্রমি প্রশিক্ষনের সুবিধাদি আছে। এটি একটি ফুল টাইম চাকরির সার্কুলার এবং ক্যরিয়ার গঠনের দারুন সুযোগ আছে বলে সার্কুলারে স্পস্ট উল্লেখ আছে।

ক্যরিয়ার গঠনের সুযোগ এই ব্যপারটা একটু ব্যাখ্যা করা দরকার। কারন অনেকেই এই কথার মানেটা ক্লিয়ারলি বুঝতে পারেন না। যাইহোক, অনেক চাকরি আছে যেখানে প্রকৃত পক্ষে ক্যারিয়ার গঠনের সুযোগ থাকেনা। মানে হচ্ছে যে, ধরুন আপনি একটা প্রতিষ্ঠানে কাজ করেন। আপনার একটি ফিক্সড সেলারি আছে। কিন্তু সেই প্রতিষ্ঠানে ধরুন প্রমোশনের সুযোগ নেই। ফলে আপনি যে টাকা বেতন পাবেন সেটা দিয়েই জীবন পার করে দিতে হবে। অথবা এমন যদি হয় যে, এমন এক অফিসে কাজ করেন সেখানে বাড়তি কাজ করে বাড়তি আয়ের কোন সুযোগ নেই। সেক্ষত্রে আপনি প্রায়ই হতাশা ফিল করতেই থাকবেন। হয়তো বন্ধুদের সাথে আপনি এমন আলোচনাও করবেন যে, এমন এক চাকরি করি যেখানে ভবিষ্যত উজ্জ্বল হবার কোন সম্ভাবনাই নেই। আবার ধরুন এমন এক প্রতিষ্ঠানে কাজ করেন যেখানে যত কাজ করতে পারবেন আপনার উন্নতি তেমনি তিব্রগতিতে হতেই থাকবে। অথবা এমন ও হতে পারে যে, এমন হতে অফিস যেখানে বেতন না বাড়লেও বাড়তি নানা ধরনের কাজ করে বাড়তি টাকা পয়সা আয় করা করা যায়। এই যে, সেলারির বাইরেও বাড়তি কাজ করে বারতি আয়ের একটা সুযোগ থাকা বা সেলারি বৃদ্ধি পাবার সম্ভাবনা এসব থাকে যদি কোন অফিসের চাকরিতে তাহলে আপনি সেই চাকরিকে ক্যরিয়ার গঠনের সুযোগ সম্পন্য চাকরি বলতে পারেন।

অর্থ্যাত চাকরি যদি এমন হয় যে, সেখানে কাজ করে আপনি একটা সুন্দর ভবিষ্যতের কিছুটা স্বপ্ন দেখতে পারেন সেই জব কে ইজিলি ক্যরিয়ার গঠনের সুযোগ আছে বলে অবহিত করতে পারেন।

এই সার্কুলারেও ঠিক তেমনি স্পস্ট উল্লেখ আছে যে, পারফরমেন্স ভিত্তিক ক্যরিয়ার অগ্রগতি করা যাবে যেটা অনেক ভাল একটা ব্যাপার।

যাইহোক সবদিক দিয়ে চাকরিটা সবার জন্য উপযোগি একটা সার্কুলার। মুল সার্কুলারটি এখানে ক্লিক করে দেখে নিন।