ব্র্যাক জব – ন্যুনতম শিক্ষা এবং হাই সেলারি দিয়ে চাকরি দিচ্ছে BRAC – ঈদ বোনাস সহ নানা ধরনের লাইফটাইম এচিভমেন্ট সুযোগ সুবিধা

ব্র্যাকের চাকরির সবচেয়ে বড় যে সুবিধাটা সেটা হলো, ব্র্যাকের চাকরি মানেই লাইফটাইম এচিভমেন্ট জব। লাইফটাইম এচিভমেন্ট জব মানে হচ্ছে, নিশ্চিন্তে জীবন পার করে দেয়া যায় এমন চাকরি। সরকারি চাকরি হচ্ছে এক ধরনে লাইফটাইম এচিভমেন্ট জব। কারন সরকারি চাকরির মত নিশ্চিন্তে জীবন পার করে দেয়ার মত চাকরি আর দ্বিতীয়টি নেই।

এখন কথা হচ্ছে, সরকারি চাকরি ছাড়া কি আর কোন চাকরি নেই যেখানে সরকারি চাকরির মতই কিছুটা স্বাদ পাওয়া যায়? উত্তর হচ্ছে অবশ্যই আছে। অনেক প্রতিষ্ঠান আছে এদেশে যেখানে সুযোগ সুবিধা সরকারি চাকরির চেয়ে অনেক বেশি এবং অনেক বেশি নিশ্চিন্তের। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে, সরকারি চাকরির ব্যপারটা হচ্ছে একটা অন্যরকম সামাজিক সম্মান বহন করে নিয়ে আসে। কিন্তু অন্য চাকরির সুযোগ সুবিধা যতই সরকারি চাকরির চেয়ে বেশি হোক না কেন, সামাজিক সম্মান এর দিক দিয়ে সরকারি চাকরি অলওয়েজ উপরেই থেকে যায়। এমন ও দেখা যায় যে মাঝে মাঝে ক্ষেত্রবিশেষে্যে, বেসরকারি কোন প্রতিষ্ঠানের অফিসারের সামনে যখন কোন সরকারি অফিস সহকারিও বলে যে, তিনি সরকারি চাকরি করেন, তখন সেই বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের অফিসারের মুখ চুপষে যায়। এগুলো সামাজিক সম্মান কিভাবে সরকারি চাকরির কারনে উপরে উঠে তার এক একটা উদাহরন। যাইহোক, সরকারি চাকরির ভাগ্য সবার হয়না আবার অনেকের হলেও মনের মত পদবী কপালে জোটেনা।

ফলে সরকারি চাকরির সামাজিক সম্মানের ব্যপারটা যদি মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলতে পারেন সেক্ষেত্রে অসংখ্য প্রতিষ্ঠান আছে অনেক অফিস আছে যারা বেশ ভাল ভাল চাকরির ব্যাবস্থা করে রেখেছে যারা অনেক ভাল ভাল সুযোগ সুবিধা প্রদান করে থাকে।

ব্র্যাকের চাকরিও এমন সু্যোগ সুবিধা সম্পন্য। কারন ব্র্যাকের প্রায় সব চাকরিতে আছে হাই সেলারির সাথে ২ ঈদে বোনাসের ব্যবস্থা। শুধু তাই নয়, গ্রেচুয়িটি, প্রভিডেন্ড ফান্ড সহ চাকরিতে উন্নতি করার নানা ধরনের সুযোগ সুবিধা সহ পুর্নাংগ চাকরি পাওয়া যায় ব্র্যাকের কাজের ক্ষেত্রে।

এখন কথা হচ্ছে, ব্র্যাকের চাকরি পাওয়ার সবচেয়ে গ্রহনযোগ্য উপায় কি। ব্র্যাকের চাকরির জন্য নির্দিষ্ট ব্র্যাকের জব লিস্টিং সাইট আছে। তবে ব্র্যাকের সবচেয়ে আকর্ষনীয় কিছু চাকরির লিস্ট দেখতে পাবেন এই লিংকে ক্লিক করেই। সার্কুলার দেখে নিয়ম মাফিক এপ্লাই করে ফেলুন আজই।