শপে ১২০০০ – ২২০০০ বেতনে SSC/ HSC/ ডিগ্রিতেই জয়েন করতে হলে এই বিষয় গুলো মাথায় রাখুন – আশাকরি সকল কিছু জেনে এপ্লাই করলে ঝামেলাহীন কাজ করতে পারবেন

শপে কাজ করতে হলে কয়েকটা জিনিস মাথায় রেখে তারপর কাজে জয়েন করা উচিত। কারন শপে কাজের ক্ষেত্রে এমন কিছু বিষয় আছে যেগুলো আপনি যদি মেইন টেইন করতে না পারেন অথবা যদি এমন হয় যে, আপনি সেই সব জিনিস নিজের মত করে করতে পারছেন না সেক্ষেত্রে আপনার নানা ধরনের প্রবলেম এর সাথে ডিল করতে হতে পারে। শপ বলতে যে শুধু স্বপই আছে তা কিন্তু নয়। অন্যান্য সকল শপের ক্ষেত্রেও সেইম প্রবলেম আপনাকে ফেইস করতে হতে হবে। সবার আগে আপনাকে যে জিনিসটা মাথাতে রাখতে হবে সেটা হল যে, শপের চাকরি অন্যান্য ৮/১০ টা চাকরির মত চেয়ার টেবিলে বসে বসে করা যায় না।

অন্যান্য চাকরির ক্ষেত্রে দেখা যায় যে, চাকরি যেমনি হোক না কেনা আপনার পার্মানেন্ট অথবা নন পার্মানেন্ট চেয়ার টেবিল থাকে। যদি টেবিল নাও থাকে সেক্ষেত্রে অন্তত একটা চেয়ার আপনার জন্য বরাদ্ধ থাকবেই। যদি এমন হয় যে, চেয়ার বা টেবিল যেটিই হোক না কেন কোনটাই নির্দিষ্ট করে আপনার জন্য বরাদ্ধ নেই সেক্ষেত্রে আপনার অবশ্যই বসার একটা না একটা প্লেস থাকবেই।

এবার আসা যাক, শপের কথায় আই মিন শপের জবের কথায়। শপে যারা জব করেন তারা বসার জায়গা পান তো দুরের কথা বসার পারমিশন পায় কিনা সেটাই দেখার বিষয়। ধরুন আপনি একটা শপে কাজে ঢুকলেন। আপনার কাজ হল কাস্টমার ডিল করা অর্থ্যাত কাস্টমার যারা আসবেন তাদের দেখাশোনা করা। সেক্ষেত্রে আপনার ডিউটি যদি সকার ৮ টা থেকে বিকাল ৪ টা বা ৫ টা পর্যন্ত হয় তাহলে ধরে নিতে পারেন সেই পুরোটা সময় আপনাকে দাড়িয়েই কাটিয়ে দিতে হবে। শুধুমাত্র খাবার সময় হালকা পাতলা বসে খেতে দেবার সুযোগ দেয়া হলেও হতে পারে। সময় টা যদি হয় ঈদের সিজন তাহলে তো কথাই নেই। বসে খাওয়ার সুযোগটাও পাবেন না। আমি প্রচুর কর্মি দেখেছি যারা ঈদের সিজনে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে খাবার সেরে নিচ্ছে।

সো, শপে কাজ করতে হলে এই ব্যপার গুলো খেয়াল রাখা জরুরী। এসব ব্যাপার যদি মেনে নেয়া আপনার জন্য কোন ব্যাপাই না হয় তাহলে এখানে ক্লিক করে জয়েন করার নিয়ম জেনে নিন।