নাইট শিফটে ৫ দিন কাজেই ১৩০০০ – ১৬০০০ বেতনে জয়েন করুন (ছেলে/ মেয়ে) – ওভারটাইম করে উপরি আয়ের ব্যাবস্থা

সপ্তাহে ৫ দিন ডিউটি এই কাজটি নাইট শিফটে কাজের জন্য। ১৩ হাজার থেকে ১৬ হাজার টাকা বেতন। এছাড়া অভারটাইম কাজ করে বাড়তি আয়ের সুযোগ আছে। এছাড়া আছে পার্ফর্মেন্স বোনাসের ব্যাবস্থা এবং সপ্তাহে ২ দিন ছুটি।

এসবের সাথে আপনি পাবেন গ্রেচুয়িটি এবং ৬ মাস পরপর বৃদ্ধির ব্যাবস্থা। ২ ঈদের পাবেন ঈদ বোনাস এবং মাসের ৫ তারিখের মধ্যেই বেতনের ব্যাবস্থা। এছড়া পার্ফর্মেন্সের উপর ভিত্তি করে ইয়ারলি রিক্রিয়েশনের ব্যাবস্থা আছে।

আরেকটি সুবিধা আছে ইয়ারলি প্রফিট শেয়ারিং এবং কাজের সময় আনলিমিটেড কফির ব্যবস্থা। ইয়ারলি ১০ টি পেইড হলিডে এবং ১৫ টি ক্যজুয়াল লিভ নিতে পারবেন।

ক্যন্ডিডেট কে অবশ্যই ১৮ বছর থেকে ৩৫ বছর বয়সের হতে হবে এবং কল সেন্টারে কাজের অভিজ্ঞতা থাকলে প্রাইয়োরিটি পাওয়া যাবে।

ইংলিশ মিডিয়াম ব্যকগ্রাউন্ডের হলে অগ্রাধিকার পাবেন এবন ইংরেজিতে ভাল হতে হবে।

২ ভাবে কাজ করা যাবে। অফিসে গিয়ে অথবা ঘরে বসে। তবে ঘরে বসে কাজ করতে চাইলে ৭০ সেলারি পাবেন বেসিক বাকি সব ঠিক থাকবে।

মুল সার্কুলারে আপনি পাবেন কিভাবে এপ্লাই করতে হবে। বিশেষ ভাবে লক্ষ্য করবেন যে, এই চাকরিতে এপ্লাই করার সিস্টেম কিছুটা ভিন্ন টাইপের। তাই আবেদন করার আগে মুল সার্কুলারটি ভাল করে পড়বেন আগে তারপর সার্কুলারে যা যা করতে বলা হয়েছে সেই অনুসারে এপ্লিকেশন ড্রপ করবেন।

এই কাজের জন্য যারা সিলেক্টেড হবেন তারা কি কি কাজ করবেন সে বিষয় নিয়ে কিছু কথা বলা যাক। মুলত এটি একটি কল সেন্টার ভিত্তিক কাজ। আর যেহেতু এটা নাইটে কাজ হয় তাই এটাকে নাইট শিফট কল সেন্টার ও বলা যেতে পারে।

অনেকের মনে প্রশ্ন জাগতেই পারে যে, রাতে কাজের কারন কি? অনেকে আবার নেগেটিভ চিন্তাও করে বসেন মাঝে মাঝে। নেগেটিভ চিন্তা আসতেই পারে তাতে দোষের কিছু নেই। না জানলে নেগেটিভ চিন্তা আসবে এটাই স্বাভাবিক।

রাতে কাজ করা হয় কারন, এই জবের মুল কাজ হল আমেরিকার বিভিন্ন ক্লায়েন্টের সাথে কথা বলা। এখন কথা হচ্ছে, আমেরিকার মানুষকে যদি আপনি দিনের বেলায় বাংলাদেশ থেকে কল করেন তাহলে তাদের কাছে কল যাবে তাদের সময়ে রাতের বেলায়। আর রাতের বেলায় যদি কল করেন তাহলে তারা দিনের বেলা সময়ে কল রিসিভ করবে। যেহেতু তারা ক্লায়েন্ট সেহেতু তাদের সময়ে যখন দিন তখনি কল করতে হবে এবং তাদের সময়ে যখন দিন তখন আমাদের সময় রাত। তাই বাধ্য হয়েই আমাদের এইসব কল সেন্টার রাতের শিফটেই খোলা রাখতে হয়।

এপ্লাই করার নিয়ম দেখুন এখানে ক্লিক করেই।