এই বক্সে Apply Now লিখে খুজতে হবে নইলে পাবেন না

Apply → শুক্রবার ফ্রি থাকেন যারা তারা ১ বেলা ৩৩৩ টাকায় কাজ করতে পারেন। ৩ বেলা করলে ১৩৩৩ টাকা


শুধুমাত্র শুক্র এবং শনিবার করা যায় এমন কিছু পার্ট টাইম জব আছে। যেখানে অফিস ভেদে শুক্রবারে ১২০০ থেকে ২৫০০ টাকা পর্যন্ত পাওয়া যায়। আর শনিবারে অফিসভেদে ৮০০ থেকে ৩০০০ পর্যন্ত পাওয়া যায়। তবে এইসব চাকরি পাওয়া এত সহজ নয়। যেহেতু সেলারি অনেক হাই সেজন্য এইসব চাকরি অনেকেই করতে চায়। বিশেষ করে অনেকেই আছেন, অন্য অফিসে কাজ করেন কিন্তু ঢাকায় একা থাকেন সেইজন্য শুক্র এবং শনিবার বসেবসে অলস কেটে যায়, তারা মুলত এই কাজগুলো করতে সাচ্ছন্দবোধ করেন বেশি। তবে যারা অন্য অফিসে অলরেডি কাজের সাথে যুক্ত আছেন তারাই এই কাজগুলো বেশি পায়। কারন এইসব কাজের জন্য কিছুটা স্কিল্ড ওয়ার্কার খুজে থাকেন অফিসগুলো।

শুক্রশনিবার অফিস গুলোতে অনেক কর্মী কমে যায়। ফলে যেসব অফিস শুক্রবারেও চালু রাখতেই হয় সেসব অফিসেই মুলত এইসব কাজ পাওয়া যায়।
তবে এইসব কাজ স্কিল্ড এবং আনস্কিল্ড দুই ধরনের আছে। স্কিল্ড কাজগুলোর বেতন অনেক বেশি থাকে। ক্ষেত্র বিশেষে স্কিল্ড কর্মীদের জন্য এই ধরনের কাজের সম্মানী ১ শুক্রবারেই ১০ লাখ পর্যন্ত ছাড়িয়ে যায়। কি? অবাক হলেন? বিশ্বাস হচ্ছেনা? - ১ শুক্রবারে এমন কি কাজ যে, ১০ লাখ ছাড়িয়ে যায় তাই নিয়ে অবিস্বাস কাজ করছেতো মনের ভেতর?

কিছুদিন আছে, শুক্রবারে হঠাত করে এয়ারপোর্টে (Airport) এক প্লেন নষ্ট হয়ে গেল। সবচেয়ে বড় যে ইঞ্জিনিয়ার তিনি ছিলেন সাপ্তাহিক ছুটিতে। প্লেনের সমস্যাই ছিল এমন যে, ছোট ইঞ্জিনিয়াররা ঠিক করা শুরুই করতে চাচ্ছিলেন না। তখন, একজন সনামধন্য স্কিল্ড ইঞ্জিনিয়ারকে হায়ার করা হয় প্রায় ১২ লাখ টাকায়। উনার কাজ ছিল জাস্ট এসে জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার কিছু ইন্সস্ট্রাকশন দিয়ে চলে যাওয়া। বিনিময়ে তিনি পেয়েছিলেন ১ শুক্রবারেই ১২ লাখ টাকা। কেন পেয়েছিলেন? কারন তিনি স্কিল্ড কর্মী ছিলেন। এরকম আরো অজস্র ঘটনা আছে যেগুলো আপনি বিন্দুমাত্রও জানেন না। আপনি হয়তো ভাবছেন, এর বড় ঘটনা, কই কিছুতো শুনলাম না। আসলে প্রকৃত ব্যাপার হচ্ছে, আমাদের চারপাশে যেসব ঘটনা ঘটে চলে তার সিকি অংশও আমরা জানতেই পারিনা। অতি অল্প কিছু জেনেই আমরা মনে করে বসে থাকি, বহুত কিছু জেনে ফেলেছি। বর্তমানে ইন্টার্নেট থাকার কারনেতো নিজেকে জ্ঞানের জাহাজ মনে করেন অনেকেই। আসলে টেষ্ট করে দেখতে গেলে বোঝা যায়, জ্ঞানের গভীরতা এত বেশি যে, পিপড়ার পা ও ভালমত ডুববে না। পিপড়ার কথা শুনে অনেকেই আবার বলবেন যে, পিপড়া তো পানিতে ডুবেইনা। আসলে জ্ঞানের গভীরতা আমাদের এত বেশি হয়ে গেছে আজকাল যে, আজাইরা বিষয় নিয়ে ঘাটাঘাটি না করতে আমাদের পেটের ভাত হজম হতে চায়না।

যাইহোক, শুক্র শনিবারের কাজের আরো বিস্তারিত জানার আগ্রহ যাদের আছে তারা আমাদের সাইটটা ঘুরে দেখতে পারেন। সেখানে অনেক চাকরির খবর পেয়ে যাবেন এই শুক্র শনিবারেও। 
শুক্রশনিবার কাজে সবচেয়ে বড় ক্ষেত্র হচ্ছে বিভিন্ন ব্যাংকের কল সেন্টার এবং কিছু অফিসিয়াল কাজ। এসব কাজ সবাই করতে পারবে এমন না। যাদের আগের থেকে কাজের অভিজ্ঞতা আছে শুধুমাত্র তারাই এইসব কাজ করতে পারবেন। কারন যেহেতু ভাল কর্মীর রিপ্লেসমেন্ট হিসেবে কাজ করতে হবে তাই কাজের পুর্ব অভিজ্ঞতা থাকা আবশ্যই। তাই যদি আগের কাজের অভিজ্ঞতা না থাকে তাহলে এই কাজ খুজে সময় নষ্ট করবেন না।
পরিচিত কেউ যদি ব্যাংক বা কর্পোরেট অফিসে চাকরি করে থাকেন তাহলে তাদেরকে অনুরোধ করতে পারেন। তারাই এসব কাজ যোগাড় করে দিতে পারবেন। তবে আপনাকে অবশ্যই বিস্বস্থ্য  হতে হবে।


Comments

ফুল টাইম কিন্তু অকল্পনীয় সহজ জবগুলো